নাইজেরিয়া ম্যাচের আগে বরখাস্ত হচ্ছেন জর্জ সাম্পাওলি!

ক্রীড়া ডেস্কঃ   প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ড্রয়ের পর গতকাল দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে পুরোপুরি বিধ্বস্ত আর্জেন্টিনা। ২০১৪ বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলা আর্জেন্টিনা এবার গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কায়। তাদের ভাগ্য এখন ঝুলে আছে ক্রোয়েশিয়া, নাইজেরিয়া ও আইসল্যান্ডের হাতে।

৩২ বছর পর শিরোপা খরা কাটানোর উদ্দেশ্যেই রাশিয়ায় পা রাখে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। কিন্তু প্রথম ম্যাচে ড্রয়ের পরই সমালোচনার তীর বিদ্ধ হতে থাকে তাদের ওপর। প্রথম ম্যাচে ড্রয়ের রেশ দেখা যায় দ্বিতীয় ম্যাচেও। যার ফল ক্রোয়েটদের বিপক্ষে পুরো বিধ্বস্ত।

এখন আর্জেন্টিনার নক আউট পর্বের ভাগ্য ঝুলে আছে সুতোর উপর। ২৬ জুন দিবাগত রাতে নিজেদের শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়ার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। কিন্তু তার আগেই আর্জেন্টিনা শিবিরে অশনি সংকেত। শোনা যাচ্ছে নাইজেরিয়া ম্যাচের আগে বরখাস্ত হচ্ছেন জর্জ সাম্পাওলি।

সেবাস তেম্পোনি নামে এক ক্রীড়া সাংবাদিকের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে মুনদো অ্যালবিসেলেস্তি।

ম্যাচে এমন পরাজয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে নেন কোচ সাম্পাওলি। ওদিকে আর্জেন্টিনার জ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়রাও নাকি চাচ্ছেন না সাম্পাওলিকে। মূলত তার কৌশল নিয়ে ক্ষেপেছেন তারা। সাম্পাওলিকে যদি সরিয়ে দেয়া না হয় তাহলে অনেক সিনিয়র খেলোয়াড় অবসর ঘোষণা করতে পারেন। তাই সুপার ঈগলদের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সরিয়ে দেয়া হতে পারে তাকে। অবসরে যাওয়াদের তালিকায় রয়েছেন, অধিনায়ক লিওনেল মেসি, গঞ্জালো হিগুয়েইন, সার্জিও আগুয়েরো, অ্যাঞ্জেলো ডি মারিয়া, মার্কাস রোহো, হাভিয়ের মাসচেরানো, লুকাস বিগলিয়া, এভার বানেগার মতো খেলোয়াড়েরা।

আর্জেন্টাইন মিডিয়ার খবর ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে অদ্ভুত কৌশলে খেলিয়ে দলকে বিপর্যয়ে ফেলেন সাম্পাওলি। অভিজ্ঞ ডি মারিয়া, ফর্মের তুঙ্গে থাকা দিবালাকে বাদ দিয়ে একাদশ সাজানোয় সমালোচনার তীর তার দিকে। তাছাড়া প্রসিদ্ধ তিনজন ডিফেন্ডারকে না খেলিয়ে চারজন ফুলব্যাককে একসঙ্গে খেলানোয় আর্জেন্টিনার মাঠের অবস্থা ছিল একদমই যাচ্ছে তাই। খেলোয়াড়রা তাদের নামের ওজন অনুযায়ীও খেলতে পারেননি।

রাশিয়ায় থাকা আর্জেন্টাইন গণমাধ্যম কর্মীরা টুইট করে জানিয়েছে, ম্যাচ শেষেই খেলোয়াড়েরা বৈঠক করেছেন এবং শেষ ম্যাচে নামার আগেই সাম্পাওলির বিদায় চান তারা। টিএনটি স্পোর্টসের সাংবাদিক হার্নান কাস্তিলো টুইট করে জানিয়েছেন, ‘খেলোয়াড়েরা ইতোমধ্যে কথা বলেছে। সম্ভবত বিশ্বকাপের আগে তারা আর সাম্পাওলিকে চাচ্ছেন না। তার পরিবর্তে বুরুচাগাকে চাচ্ছে।’ যদিও কাস্তিলো শতভাগ নিশ্চিত নয় এই গুঞ্জন নিয়ে। তবে যা ঘটে, তার কিছু রটেই।

মেসিরা চাইলেও সাম্পাওলির ছাঁটাই আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশনের জন্য খুব সহজ কিছু হবে না। সাম্পাওলির সঙ্গে আর্জেন্টিনা দলের দীর্ঘমেয়াদি চুক্তি রয়েছে। এখনই যদি তাকে বরখাস্ত করা হয় তাহলে চুক্তি অনুযায়ী তাকে অতিরিক্ত ২০ মিলিয়ন ইউরো দিতে হবে। যার ফলে আর্থিক দিক দিয়েও অনেকটা ক্ষতির মুখে পড়তে হবে এএফএকে। সাম্পাওলি বরখাস্ত হলে তিনি হবে দ্বিতীয় ব্যক্তি যিনি বিশ্বকাপ চলাকালে বরখাস্ত হলেন। এর আগে স্পেনের কোচকে ছাটাই করেছিল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন।

সাম্পাওলি পরবর্তি আলবেসিলেস্তের কোচের তালিকায় এগিয়ে আছেন ১৯৮৬’র বিশ্বকাপ জয়ী খেলোয়াড় বুরুচাগা। ‘এল বুরু’ নামে পরিচিত এই ফুটবলারের পা থেকেই এসেছিলো ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের জয়সূচক গোলটি। তবে এতকিছুর পরও এখন পর্যন্ত আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের কাছ থেকে কোন বিবৃতি পাওয়া যায়নি।