চাকুরীর প্রলোভনে দুবাইয়ে পাচার, গ্রেফতার ২

রূপগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ):  রূপগঞ্জে মানবপাচারচক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৬ নভেম্বর) সকালে উপজেলার বরপা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, উজেলার বরপা এলাকার সেলিম মিয়া স্ত্রী রাহিমা বেগম ও চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি থানার পশ্চিম বুশপুর এলাকার সাহের উদ্দিনের ছেলে সফিউল ইসলাম বাচ্চু।
এর আগে, নাজমা বেগম নামে এক নারী তার মেয়ে জোৎন্সা আক্তার (২৫) কে মানব পাচারের অভিযোগ এনে বাদী রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
নাজমা বেগম অভিযোগ করে জানান, তিনি পার্শ্ববর্তী সোনারগাঁও উপজেলার বরপা বাদামতলা এলাকার বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী। রাহিমা বেগম পূর্ব পরিচিত হওয়ার কারনে প্রায় সময়ই নাজমা বেগমের বাড়িতে আসা যাওয়া করত। বেশ কিছুদিন আগে রাহিমা বেগম তার মেয়ে জোৎন্সা আক্তারকে ৩০ হাজার টাকা বেতনে পার্লারে চাকুরীতে দুবাই নিয়ে যাওয়ার কথা বলে।
পরে দুবাই যাওয়ার জন্য রাজী হলে রাহিমা আক্তার বরপা এলাকায় শাহআলম নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে নিয়ে জোৎন্সা আক্তারকে রাখে। মা নাজমা বেগম তার মেয়েকে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার জন্য রাহিমা বেগমকে নগদ ২০ হাজার টাকা প্রদান করেন। গত ৭ নভেম্বর রাহিমা বেগম আরবি ট্রাভেল এজেন্সেীর মাধ্যমে জোৎন্সা আক্তারকে দুবাই পাঠিয়ে দেয়। গত ১৪ নভেম্বর জোৎন্সা আক্তার মা নাজমা বেগমকে মোবাইল ফোনে মাধ্যমে জানায় তাকে প্রতিশ্রুতি মতো চাকরী না দিয়ে আটকে রেখে শারিরিক নির্যাতন চালাচ্ছে। পরে নাজমা আক্তার তার মেয়েকে দুবাই থেকে ফেরত এনে দেওয়ার কথা বললে রাহিমা বেগম তাকে হুমকি ধামকি প্রদান করে। এ ব্যাপারে নাজমা বেগম বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, এ ঘটনায় রাহিমা বেগম ও সফিউল আজম বাচ্চুকে নগদ টাকা, ডলার ও বেশ কয়েকটি পাসপোর্টসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো গ্রেফতার অভিযান চলছে।