চোখ

– মামুন রনি

তোমার চোখ দুটো বটের পাতার মতো
ছলছল চোখ উছলে পড়ে যৌবন ঢেউয়ে,
অহেতুক পড়ে থাকা বটের লতার মতো
তোমার চুল যখন চোখের সীমানায় আসে
তখন তোমার চোখের রক্তিম আভা
আমার রক্তে উষ্ণতা ছড়াতে থাকে অবিরাম ধারায়।
তোমার টানা বটপত্রের চোখে
শতবর্ষী বটের বুকে লুকিয়ে থাকার মতো
শতাব্দীর সমস্ত যৌবন খেলা করে পলকে পলকে
কম্পন তোলে আমার পাঁজরের তলে,
শুধু দুটো চোখ, ওই দুটো চোখ!
দুটো চোখ বসন্তের খোলা জানালা
দুটো চোখ মেঘের খেলায় মুক্ত আকাশ
দুটো চোখ যেন পেখম তোলা ময়ূরের নৃত্য
ওই দুটো চোখ যেন উতলা ঢেউয়ের সমুদ্র
দুটো চোখ যেন আমার একাল-সেকাল
দুটো চোখ আমার নিজেকে দেখে নেওয়ার আয়না
দুটো চোখ মায়াময় ফুলের হাসি
ওই দুটো চোখ আমার অজানা শত ভাবনারাশি
দুটো চোখ আমার নীড়ে ফেরার আকুতি
দুটো চোখ আমার গোপন এককের সাক্ষী
দুটো চোখ আমার মুক্ত বাতাসে মুক্তি
ওই দুটো চোখ কখনও শান্ত সকাল আবার
কখনও রক্তিম বিকেলের আঁধার ধেয়ে আসা সন্ধ্যা।
আমার বিশ্ব তোমার ওই দুটো চোখ
ওই চোখেই আমি হারাই, ফের নিজেকে আবিষ্কার করি।