আলোচনা ভাল হয়েছেঃ বললেন ড. কামাল

রাজনৈতিক ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): দীর্ঘ প্রায় পৌঁনে চার ঘণ্টার সংলাপ শেষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন গণভবন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের বলেছেন, আলোচনা ভালো হয়েছে।

এ নিয়ে রাতে তার বাসায় সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানাবেন।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতির নেতৃত্বে ১৪ দলের সঙ্গে এ সংলাপ শুরু হয় সন্ধ্যা ৭টার দিকে। যদিও সংলাপের জন্য দুই ঘণ্টা নির্ধারিত ছিল।

সংলাপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ড. কামাল হোসেন দুইপক্ষে নেতৃত্ব দেন।

৯টার পর নৈশভোজের জন্য সংলাপে বিরতি দেওয়া হয়। নৈশভোজের পর তা আবারো শুরু হয়।

এরআগে বৃহস্পতিবার সংলাপের জন্য নির্ধারিত সময় ৭টার কিছু আগ থেকেই ঐক্যফ্রন্ট নেতারা গণভবনে আসতে শুরু করেন।

সন্ধ্যা ৭টার কিছুপর সংলাপ শুরু হলে, সূচনা বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সেসময় তিনি বলেন, তার সরকারের প্রায় দশ বছর মেয়াদে দেশের সার্বিক উন্নয়নকে মূল্যায়ন করার ভার ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের ওপর ছেড়ে দিয়ে বলেছেন, দেশের মানুষ ভালো আছে। তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটছে।

সঙ্গে যোগ করেন: দিনবদলের যে সূচনা করেছিলাম সেই দিন বদল হচ্ছে। এটাকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

সংলাপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দলের ২৩ জনের প্রতিনিধি দল অংশ নেন। আর ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে অংশ নেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ঐক্যফ্রন্টের ২০ নেতা।

সংলাপ শুরুর হওয়ার পর তাতে যোগ দেন ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির অন্যতম সদস্য ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তবে তালিকায় নাম থাকার পরও অংশ নেননি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

সোমবার হঠাৎ করেই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে তাদের দল সংলাপে বসবে।

এর পরের দিন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠিও দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে জাতীয় নির্বাচনসহ ঘোষিত ৭ দফা দাবি ও ১১টি লক্ষ্য সম্বলিত একটি চিঠি রোববার আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে পৌঁছে দেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনার কাছে দেয়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে সংলাপের আহ্বান জানানো হয়।

গত ১৩ অক্টোবর ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপিসহ চারটি দলের সমন্বয়ে নতুন রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আত্মপ্রকাশ করে।