লাঙ্গল নিয়ে ভাববার সময় নেই- আবু সুফিয়ান

বন্দর(আজকের নারায়নগঞ্জ):  জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন একেবারেই দোরগোড়ায়। তাই লাঙ্গল নিয়ে ভাববার সময় নেই।

আমাদের সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকার পক্ষে জনমত তৈরি করতে হবে। আর জনমত তৈরি করতেই নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের শহর ও বন্দরের প্রতিটি নির্বাচনী কেন্দ্র এলাকায় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে কর্মীসভা আয়োজন করা হচ্ছে।

এসব কর্মীসভার মূল লক্ষ্য বিগত নির্বাচনগুলোতে আওয়ামীলীগের নির্বাচনী ত্রুটির কারণে ফলাফলে যে পার্থক্য তৈরি হয়েছিলো সেগুলোকে সাংগঠনিকভাবে আরো শক্তিশালী করে তোলা।

লাঞ্ছনা, বঞ্চনার শিকার হয়ে আওয়ামীলীগের যেসব তৃণমূল কর্মীরা দল থেকে দূরে সরে আছেন তাদের অভিমান ভাঙিয়ে শক্তিশালী সাংগঠনিক কাঠামোর ভীত গড়ে তোলা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সভাপতিত্ব করেন নবীগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি পীর মোহাম্মদ পীরু।

সুফিয়ান আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে পুনরায় ক্ষমতায় নিয়ে আসা ছাড়া অন্য কোন বিকল্প পথ নেই। আমরা এআসনটিসহ জেলার পাঁচটি আসনে নৌকার প্রার্থী দাবি করে আসছি। শুধু প্রার্থী দিলেই নির্বাচনে জয়ী হওয়া যাবেনা। এরজন্য আমাদের তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে নৌকার পক্ষে জনমত তৈরি করতে হবে।

আওয়ামীলীগের প্রার্থী নির্বাচনে না থাকায়, এমপি না থাকায় এখানকার আওয়ামীলীগ কর্মীরা কতখানি নির্যাতিত হয়েছে, বঞ্চিত হয়েছে তা কেন্দ্র অবগত। আমাদের দাবি সম্পর্কেও তারা ওয়াকিবহাল। সুতরাং হতাশ না হয়ে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ন্যায় বিচারক, তিনি আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের সমস্যা সম্পর্কে অবগত। তাই একাদশ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি আসনে প্রার্থী নির্বাচনে তিনি আমাদের অবশ্যই হতাশ করবেননা। তিনি যাকেই নৌকার মাঝি বানাবেন আমরা তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবো।

কর্মীসভায় জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক নুর হোসেন, নোয়াদ্দা পাঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি জবরুল ইসলাম, পলাশ মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আকিম উদ্দিন, খোকা মিয়া, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু, যুবলীগ নেতা মোতালেব, মুন্না, কামাল, জামান, মাহাবুব, রাকিব, মীর আসলাম, রুবেল, সেলিম, শরীফ হীরা, কবির টিটু, আলমগীর, আশরাফ, শুক্কুর, শাখাওয়াত, হিমেল, রিপন, সালাউদ্দীন, রাব্বি, স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।