ভুলতা ফাঁড়ির ইনচার্জসহ সংশ্লিষ্টদের আইনের আওতায় আনার দাবী’

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ আড়াইহাজারে একইদিনে দুইজন পরিবহন শ্রমিকসহ ৫ হত্যাকান্ডের ঘটনা সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রফিকুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টদের আইনের আওতায় আনার জোর দাবী করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং ২৩০২ এর সভাপতি ড. সামছুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার সংবাদ অনুযায়ী শুক্রবার ভুলতা ফাঁড়ির কতিপয় পুলিশ সদস্য পরিবহন শ্রমিক ফারুক ও ফারুকের গ্রামের স¤পর্কে ভাগনে অপর তিনজন বেকারিশ্রমিক সবুজ, জহিরুল ও লিটনকে কোন প্রকার কারণ ছাড়াই বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। পরদিন শনিবার তাদের অমানুসিক নির্যাতন করা হয়েছে বলেও ফারুক তার স্ত্রীকে জানিয়েছিলেন। অথচ রবিবার ফারুক, সবুজ, জহিরুলসহ অপর এক পরিবহন শ্রমিক মাইক্রোবাসচালক লুৎফর রহমান মোল্লার লাশ পাওয়া গেল মহাসড়কের পাশে। একই দিনে রূপগঞ্জ থানা এলাকা থেকে হাইওয়ে পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে তা বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করেছে, লিটনের পরিবারের ধারণা সেটি লিটনের লাশ।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন ঘটনার বিবরণে এটা দিনের আলোর মতোই পরিষ্কার যে এই হত্যাকান্ডের সাথে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। হত্যাকান্ডকে কেন্দ্রকরে কোন প্রকার তদন্ত ছাড়াই নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের “এ রকম কোনো ঘটনা ঘটার কথা নয়। যে বা যাঁরা এসব বলছেন, তাঁরা মিথ্যা বলছেন” এ জাতীয় বক্তব্য হত্যাকারীদের আড়াল করার অপচেষ্টা বলেও মনে করেন নারায়ণগঞ্জের অভিজ্ঞ মহল।

আর তাই কালবিলম্ব না করে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক রফিকুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টদের অবিলস্বে আইনের আওতায় এনে ঘটনার প্রকৃত সত্য উদঘাটন করে অবিলম্বে ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার জন্য নেতৃবৃন্দ জোর দাবী করেন।