খাশোগির কাটা আঙুলগুলো সৌদিতে নিয়ে যুবরাজকে দেখানো হয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):  সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার পর তার আঙুলগুলো কেটে সৌদি আরবে নেয়া হয় এবং দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে তা দেখানো হয়।

গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে সৌদি রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে একথা জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম ‘মিরর’।

এতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের এই কলামিস্ট জীবিত থাকাকালেই তার আঙুলগুলো কেটে ফেলা হয়। হত্যার প্রমাণস্বরূপ তার আঙুলগুলো কেটে রাখে তাকে হত্যা করতে পাঠানো দলটি।

আরও বলা হয়, ভিন্নমতাবলম্বী খাশোগির কাটা আঙুলগুলো একটি ব্যাগে রাখা হয়। পরে হত্যার মিশনের সফলতার প্রমাণস্বরূপ ব্যাগটি একটি প্রাইভেট জেটে করে রিয়াদে পাঠানো হয়।

এদিন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান তার জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (একে) পার্টির সভায় বলেন, গত ২ অক্টোবর সংঘটিত সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যা ছিল পূর্বপরিকল্পিত। আমাদের কাছে এর প্রমাণও আছে। এই ঘটনার নগ্ন সত্য প্রকাশ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, খাশোগিকে হত্যা করতে পাঠানো সৌদি দলটি ইস্তাম্বুলের বেলগ্র্যাড ফরেস্টে এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইয়ালোভা প্রদেশে এই হত্যার পরিকল্পনা করে। অথচ সৌদি সরকার তার হত্যার ১৭ দিন পর আনুষ্ঠানিকভাবে দায় স্বীকার করেছে।

গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ব্যক্তিগত কাগজপত্র আনার প্রয়োজনে ঢোকার পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন খাশোগি। এই ঘটনায় তুর্কি কর্মকর্তা প্রথম থেকেই দাবি করে আসছিলেন যে তাকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু সৌদি কর্তৃপক্ষ এই দাবি অস্বীকার করে আসলেও ১৭ দিন পর তা স্বীকার করে।