সামিয়ানা জল-এর দুটি কবিতা

 

১। অমিল

বিনিদ্র রাত ঘুমের বিছানা ভেঙে চিৎ
হয়ে মেঝেতে পড়ে থাকা লাশ যেন দেহগুলো
কবে কোন্ কালে খেয়েছিল কাঁধ ছুঁয়ে কছম
চুপচাপ খুঁজছে সেই অমিল পর্বের ছাঁচ ।

মাথার পরতে পরতে কিলবিল সৃষ্টি কিংবা অনাসৃষ্টি
লেখা সহজ বলা কঠিন করা আরো কঠিন
এ যেন টর্নেডোর শরীরে পোশাক পড়ানোর খেলা ।

হেসে কিংবা কেঁদে দেহগুলো বিরবির করে কথা কয়
আড়ি রাতের সাথে দিনের সাথে জ্ঞানের সাথে
প্রকৃতির সাথে অবশেষে নিজের সাথে ।

২। তোতা বুলি

কাজে যাবি? না
খাদ্য খাবি? না
মাথায় ঘোরপ্যাচওয়ালা কথাগুলো কইবি? না
কফিন ঘরে যাবি? না
বেঁচে থাকবি? হ
তো কেমনে বাঁচতে হয় ?
কেন? তালে তাল মিলাবি
হোক সেটা নিয়ম নীতি বহির্ভূত তাতে কী
বেঁচে তো থাকবি তোতার মত।
হে হে তবে তাই হউক দেহগুলো নড়েচড়ে ওঠে
তোতার লগে করবে মিতালী হা হা বাঁচবে কয়।