1. admin@ajkernarayanganj.com : admin :
বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

সোনারগাঁয়ে থানায় অভিযোগ করেও হামলা থেকে রক্ষা পেলেন না ছাত্রলীগ নেতা

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৬ মার্চ, ২০২৪
  • ২১৫ বার পঠিত

সোনারগাঁ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় লিখিত  অভিযোগ করার পরও হামলার শিকার হয়েছেন সোনাগাঁও পৌরসভা ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহম্মদ। গত সোমবার বিকালে প্রথমবার মারধরের স্বীকার হয়ে সন্ধ্যায় রাজু আহম্মদ বাদি হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় থানা পুলিশ কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ফের মারধরের স্বীকার হন ওই ছাত্রলীগ নেতা।

অভিযোগে রাজু আহম্মদ উল্লেখ করেন, সোনারগাঁও পৌরসভার দরপত এলাকার হযরত আলীর ছেলে মাসুদ ও মামুনের সাথে রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে পূর্ব থেকে তাঁর বিরোধ চলছিলো। এর জের ধরে গত সোমবার বিকালে দরপত ঈদগাহ থেকে বাড়ি ফেরার পথে মাসুদ ও মামুন সহ ৫/৭ জনের একটি বাহিনী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় ওই দিন সন্ধ্যায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হলেও অজ্ঞাত কারনে থানা পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেননি। গতকাল মঙ্গলবার দুুপুরে বাসার সামনে দাড়িয়ে বন্ধুদের সাথে কথা বলার সময় সাবেক কাউন্সিলর শাহ জালালের নেতৃত্বে মাসুদ, মামুন, রাজন ও নবীর হোসেন সহ ৪/৫ জনের বাহিনী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আবারো হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করা হয়। পরে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে তারা হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়। আহত রাজু আহম্মদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
রাজু আহম্মদ বলেন, করোনা কালীন সময়ে মামুন দেশের বাহিরে থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গালিগালাজ করে। এটি নিয়েই তাদের সাথে পূর্ব থেকে বিরোধ রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, দলীয় সরকার ক্ষমতায় ও দলীয় এমপি ক্ষমতায় থাকার পরও যদি আওয়ামীলীগের দল করে জাতীয় পার্টি ও বিএনপির নেতাকর্মীদের হাতে মারধরের স্বীকার হতে হয় তাহলে এ দল করে লাভ কী?

সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক মেহেদী হাসান বলেন, তিনি রাতে লিখিত অভিযোগ দিলেও এন্ডোস না করায় পরের দিন দুপুরে তদন্তে গিয়ে মারধরের ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মামলা নেওয়া হবে।

পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার ও দলীয় এমপি ক্ষমতায় থাকার পরও ত্যাগী নেতাকর্মীরা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের হাতে মার খাবে এটা হতে পারে। এই ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেদুল ইসলাম রাসেল বলেন, দলীয় সরকার ক্ষমতায় থাকার পরও নেতাকর্মীরা মার খাবে এটা দু:খজনক। বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্যকে জানানো হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন তাদের আইনানুগ ব্যবস্থা নিবেন। আমরা এ ঘটনার কঠিন শাস্তি চায়।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর