1. admin@ajkernarayanganj.com : admin :
বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

মৃত্যু সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ৪ দিন পর ব্যবসায়ী দুলালের মৃত্যু

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৬৮ বার পঠিত

সোনারগাঁ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার হাবিবপুর এলাকায় জমি বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ব্যবসায়ী দুলাল মিয়া(৫০) নিহত হয়েছেন। শনিবার(০৭ অক্টোবর) ভোর রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মৃত্যুবরণ করেন।

সোনারগাঁ থানা সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ অক্টোবর সকালে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ব্যবসায়ীক কাজের কথা বলে নিহত দুলালের বড় ভাই ফজল মিয়াকে ডেকে নিয়ে মারধর করতে থাকে প্রতিপক্ষরা। ফজলকে মারধরের খবর শুনে ফজল মিয়ার পুত্র ইয়াছিন হোসাইন নির্ঝর ও ছোট ভাই মো. দুলাল মিয়া ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে দুলাল মিয়াকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও পেটের নাড়িভুঁড়ি বের করে রক্তাক্ত জখম করে। ফজল মিয়াকেও ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করলে তিনি বাম হাত দিয়ে ঠেকানোর চেষ্টা করলে তাঁর বাম হাতের কব্জি কেটে রক্তাক্ত জখম হয়। এসময় তাদের ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা চলে যায়। পরে এলাকার লোকজন আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তার দুলাল মিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানে ৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পরে শুক্রবার রাতে মারা যান আহত দুলাল মিয়া। ওই হামলার ঘটনায় ৪ অক্টোবর আহতের ভাতিজা ইয়াছিন হোসাইন নির্ঝর বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় রাজ্জাক, জামান, মেহেদি, মহসীন, ইমদাদ হোসেন, শামীম, সজিব, শাহ আলমসহ আরও ১০-১৫ জন অজ্ঞাতনামাকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ইমদাদ হোসেন (৫৫) ও আরমানকে (৪৩) গ্রেপ্তার করেন।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুব আলম বলেন, এ ঘটনায় পূর্বের দায়েরকৃত মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তরিত হবে। ঘটনার পরপরই আমরা ২ জন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছি। অন্য আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর